উপজেলা পরিষদ নিবাচন: সেনবাগে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী লায়ন মানিকের ব্যাপক গণসংযোগ

প্রতিনিধি: আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলায় প্রার্থী হিসাবে এলাকায় ব্যাপক গণসংযোগ করছেন আওয়ামীলী নেতা শহীদ মুক্তিযোদ্ধার সন্তান লায়ন জাহাঙ্গীর আলম মানিক। তিনি আওয়ামীলীগের একজন ত্যাগী ও পরিশ্রমি নেতা হিসেবে দলীয় নেতাকর্মীদের পাশাপাশি সাধারণ মানুষের মাঝেও গ্রহনযোগ্যতা রয়েছে।
জানা গেছে, লায়ন জাহাঙ্গীর আলম মানিক দীর্ঘদিন থেকে আওয়ামীলীগের রাজনীতির পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের সাথে জড়িত। এলাকায় প্রতিষ্ঠা করেছেন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন। তিনি একাধারে নোয়াখালী জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক শিল্প ও বাজিন্য বিষয়ক সম্পাদক, আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির প্রভাবশালী সদস্য, “বীব বিক্রম”শহীদ তরীক উল্লা ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠিাতা সভাপতি, লায়ন জাহাঙ্গীর আলম মহিলা কলেজের প্রতিষ্ঠাতা, সানজী গ্রুপের চেয়ারম্যান ও মেঘনা ব্যাংকের পরিচালক।
লায়ন জাহাঙ্গীর আলম মানিক দীর্ঘ দিন থেকে “বীব বিক্রম”শহীদ তরীক উল্লাহ ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে দলীয় নেতাকর্মী, সেনবাগে গরীব অসহায়দের বাড়িঘর নির্মান, কন্যাদায়গ্রস্থ পিতাদের সহযোগীতা করে বিয়ের ব্যবস্থা, বেকারদের চাকুরী , দুঃস্থ্যদের আর্থিক সহযোগীতা ও মসজিদ নির্মানের মাধ্যমে তিনি এলালাকার সর্বত্র দানবীর ও স্বচ্চ রাজনৈতিক নেতা হিসাবে পরিচয় লাভ করেছেন।
এছাড়াও লায়ন জাহাঙ্গীর আলম মানিক বিগত ২০১৪ সালে আওয়ামীলীগেরে মনোনিত প্রার্থী হিসাবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে প্রায় সাড়ে ২৭ হাজার ভোট পেয়েছেন। ওই সময় অপর দলীয় বিদ্রোহী প্রার্থী ভোট করে তিনিও সাড়ে ৯ হাজার ভোট পেয়েছেন। ওই সময় যদি দলের বিদ্রোহী প্রার্থী না থাকতো তা হলে লায়ন জাহাঙ্গীর আলম মানিক উপজেলা চেয়ারম্যান হিসাবে নির্বাচিত হতে তেমন বেগ পেতে হতোনা।
নির্বাচনে পরাজয়ের পরও লায়ন জাহাঙ্গীর আলম মানিক এলাকার মানুষকে ছেড়ে চলে যাননি। বরাং আগের চাইতে আরো বেশি সময় দেন এলাকায়। তিনি সব সময় এলাকায় যাতাযাত করে গনসংযোগ ও মতবিনিময় অব্যাহত রাখেন। এ কারনে এখানকার দলীয় নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষের মাঝে এবার একটি ধারনা সৃষ্টি হয়েছে সেনবাগে স্থানীয় প্রার্থী হিসাবে দল যদি লায়ন জাহাঙ্গীর আলম মানিককে দলীয় মনোনয়ন দেয় তা হলে অনায়াসেই তিনি উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হবেন। আর এবার মানিকের পক্ষে একাট্টা উপজেলা ও পৌর আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরাও।
সেনবাগ উপজেলা আওয়ামীলীগের একাধিক সিনিয়র নেতাকর্মী জানান, লায়ন জাহাঙ্গীর আলম মানিক দীর্ঘদিন থেকে এলাকার মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। জনপ্রতিনিধি না হয়েও তিনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান স্থাপন করে এলাকার মানুষকে আলোকিত করছেন। এবার এই ত্যাগী নেতাকে মূল্যায়ন করার সময় এসেছে। তাই লায়ন মানিকই এবার উপজেলা চেয়ারম্যানের পদটি পাওয়ার যোগ্য বলে মনে করেন তৃণমূলের নেতাকর্মীরা।
এক প্রতিক্রিয়ায় সেনবাগ উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী লায়ন জাহাঙ্গীর আলম মানিক বলেন, দীর্ঘদিন থেকে দলের জন্য কাজ করেছি। নেত্রীর কাছে মনোনয়ন চাইবো। আমাকে মনোনয়ন দিলে চেয়ারম্যান হয়ে সেনবাগবাসীকে একটি মডেল উপজেলা উপহার দেয়ার চেষ্টা করবো।

Share Button

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *