চাটখিল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রোগিকে ধর্ষণ চেষ্টা: গ্রেফতার-১

চাটখিল প্রতিনিধি: নোয়াখালী চাটখিল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা সেবা নিতে আসা এক নারী রোগীকে জরুরী বিভাগের একটি বিশেষ কক্ষে জোর পূর্বক ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে কর্তব্যরত চিকিৎসক সহকারী (মেডিকেল এসিসন্টেন্ট) আনোয়ার হোসেনের বিরুদ্ধে। বৃহসপতিবার রাত সাড়ে ৯টার সময় এ ঘটনা ঘটে। ওই নারীর চিৎকারে আস পাশের লোকজন এগিয়ে আসার আগেই দৌড়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয় জনতা ধাওয়া করে লম্পট আনোয়ার হোসেনকে আটক করে গনধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে। এঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। ধর্ষণ চেষ্টার ঘটনায় বৃহসপতিবার রাতে নারীর পিতা বাদী হয়ে চাটখিল থানায় আনোয়ার হোসেনকে আসামী করে চাটখিল থানায় একটি মামলা দায়ের করে।
মামলায় থানায় দায়ের করা অভিযোগ ও নারীর সজনদের সূত্রে জানাযায়, বৃহস্পতিবার রাত ৯টার সময় শারীরিক সমস্যা নিয়ে চাটখিল পৌরসভার ছয়ানিটবগা এলাকার এক নারী (২২) তার চাচি শাশুড়ীকে নিয়ে চাটখিল উপজেলা স্বাস্থ্য কপ্লেক্সের জরুরী বিভাগে আসেন। সেখানে কর্তরত চিকিৎসক সহকারী সোনাইমুড়ী উপজেলার সোনাপুর ইউনিয়নের শাকিরপুর গ্রামের আবদুল মালিকের ছেলে আনোয়ার হোসেন নারীকে জরুরী বিভাগের ভিতরে একটি বিশেষ কক্ষে নিয়ে যান। ওই নারী জানান প্রথমে আনোয়ার হোসেন পরীক্ষা নিরীক্ষার নাকে তার শরীরের স্পর্শকাতর অংশে একাধীক বার হাত দেন। এরপর রোগীর চাচী শাশুড়ীকে জরুরী বিভাগের কক্ষ থেকে বাহির করে দিয়ে আনোয়ার পুনঃরায় নারীর স্পর্শকাতর জায়গায় স্পর্শ করেন। এক পর্যায়ে তার পরনের সেলোয়ার খুলে তাকে ধর্ষণ করতে উদ্ধত হলে তিনি চিৎকার দেন। এসময় রোগীর চাচী শাশুড়ী (৪০) এগিয়ে এসে ঘটনা শুনে মুঠো ফোনের মাধ্যমে বাড়ীতে খবর দেন। খবর পেয়ে নারীর স্বজনরা হাসপাতালে এসে তাকে না পেয়ে খুজতে থাকে। এক পর্যায়ে আনোয়ার পালিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয় লোকজন ও নারীর স্বজনরা ধাওয়া করে তাকে উপজেলা পরিষদ গেইটে আটক করে জুতা পেটা ও গন ধোলাই দেয়। খবর পেয়ে চাটখিল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পৌছে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। রাতে মামলা হলে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে শুক্রবার দুপুরে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক হাসপাতালের একাধিক কর্মচারী জানান আনোয়ার দীর্ঘদিন যাবৎ হাসপাতালের জরুরী বিভাগে চাকরি করে আসছেন। এর আগেও একাধিক নারী রোগীর শ্লীলতা হানীর অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। এছাড়া রাতে জরুরী বিভাগে নিয়মিত জুয়ার আসর বসাতো । চাটখিল উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: মোস্তাক আহমেদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন এর আগেও আনোয়ার হোসেনের বিরুদ্ধে হাসপাতালের জরুরী বিভাগে চিকিৎসা সেবা নিতে আসা নারী রোগীদের শ্লীলতা হানীর অভিযোগ রয়েছে। এঘটনায় একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি আগামী কাল রোববার সিভিল সার্জন বরাবর রিপোর্ট পেশ করা হবে। বিষয়টি সিভিল সার্জনকে ও অবহিত করা হয়েছে। চাটখিল থানার ওসি এ এস এম সামছুদ্দিন নারী রোগীর শ্লীলতা হানীর অভিযোগে মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন গ্রেপ্তারকৃত ব্যাক্তিকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Share Button

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *