বেগমগঞ্জে মিথ্যা অপবাদ, আবাসিক ভবনে তালা দিলো ছাত্ররা

ক্রাইম রিপোর্টার: নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনীর পৌর এলাকার দীঘির দক্ষিণ পাশে আপন নিবাস হাউজিং-এ মিথ্যা অপবাদ দেওয়ায় একটি আবাসিক ভবনে তালা দেয় ছাত্ররা। এ সময় ভবনের বাসিন্ধারা আটকা পড়ে চরম দূর্ভোগের শিকার হয়। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। গত ১৭ মার্চ সকালে এ ঘটনা ঘটে।
জানা গেছে, বেগমগঞ্জ ট্রেক্সটাইল কলেজের কয়েকজন ছাত্র আপন নিবাস হাউজিংএর নুর এর্পাটমেন্ট এ ভাড়া থাকে। একই ভবনে ভাড়া থাকেন চৌমুহনীর পৌরসভার নকশাকারক মিজানুর রহমান। ১৬ ই মার্চ দিবাগত রাতে টেক্সটাইল কলেজের ছাত্র সৌরভ এক মেয়ে নিয়ে বাসায় উঠেছে বলে প্রচার করেন মিজানুর রহমান। এ নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ছাত্ররা ভবনের গেইটে তালা লাগিয়ে দেয়। এ সময় ভবনের ভেতরে অন্যান্য পরিবারের সদস্য ও ভাড়াটিয়ারা আটকা পড়ে। তারা আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। খবর পেয়ে সেখানে উপস্থিত হন ভবনের মালিক আনোয়ার হোসেন ও মোজাম্মেল হক। হাজির হয় থানা পুলিশ এবং সাংবাদিকও। পরে ভবনের মালিকরা বিষয়টি নিজেরা মিমাংশা করার কথা বললে পুলিশ সেখান থেকে চলে আসে।
এদিকে এ ঘটনার জন্য মিজানকে দায়ী করে ছাত্ররা জানায়, আমাদের কেউ কোন মেয়ে নিয়ে বাসায় আসেনি। ভবনের অন্য একজন উনার স্ত্রী নিয়ে বাসায় আসেন। কিন্তু মিজানুর রহমান বিষয়টি আমাদের উপর চাপাচ্ছেন। তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে আরো জানায়, বরং মিজানুর রহমানের ছেলে তারেক ৭ বছর হয় আমেরিকায় আছে। তারেকের মেয়ের বয়স অর্থাৎ মিজানুর রহমানের নাতিনের বসয় ৫ বছর। বিষয়টি খতিয়ে দেখা দরকার। তাছাড়া উনার স্ত্রী জেবুন্নেছা চৌমুহনী পৌরসভার টিকাদানকারী। তিনি ২০১৮ সালে একবার ছেলের কাছে আমেরিকায় গিয়ে ২ মাস ছিলেন। ২০১৯ সালের প্রথম দিকে তিনি আবার আমেরিকায় গেছেন। বর্তমানেও সেখানে অবস্থান করছেন বলে জানা গেছে। মিজানুর রহমান একমাত্র পুত্র বধু পিংকি ও ৫ বছর বয়সের নাতনীকে নিয়ে বাসায় থাকেন। বিষয়টি নিয়ে আপন নিবাস হাউজিং এলাকায় নানা গুঞ্জুন চলছে। এ ব্যাপারে মিজানুর রহমানের বক্তব্য নেয়ার চেষ্টা করলেও তাকে পাওয়া যায়নি। (চলবে)

Share Button

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *