নোয়াখালীতে স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস পালিত

স্টাফ রিপোর্টার: ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে নোয়াখালীর সবকটি উপজেলায় মহান স্বাধীনতা দিবস ও জাতীয় দিবস পালন করা হয়। দিবসটি উপলক্ষ্যে বেগমগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে গত মঙ্গলবার সকাল ১১টায় উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গনে বীরমুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা ও এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নোয়াখালী-৩, (বেগমগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য মামুনুর রশিদ কিরণ। প্রধান আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন নোয়াখালী জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা ডা. এবিএম জাফর উল্যাাহ, বেগমগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুহুল আমিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন চৌমুহনী পৌরসভার মেয়র আক্তার হোসেন ফয়সল, বেগমগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট আবদুর রহিম, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি এটি এম এনায়েত উল্ল্যাহ,আরো বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হাশেম বিএ, রফিক উল্লা, আবদুল মান্নœান ও বাবু তপন চন্দ্র মজুমদার, জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও বেগমগঞ্জ উপজেলা পরিষদের দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থী ওমর ফারুক বাদশা, বেগমগঞ্জ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) ফিরোজ হোসেন মোল্লা। এছাড়াও উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি আবুল বাসার সহ উপজেলা ও চৌমুহনী পৌর শাখার মুক্তিযোদ্ধা ও দলীয় নেতাকর্মীরা বক্তব্য রাখেন । ও নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপেজলার চন্দ্রগঞ্জ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মহান স্বাধীনতা দিবস, বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল থেকে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে এই আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গৌরি শংকর নাথের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, বিদ্যালয়ের অভিভাবক সদস্য ও সহ-সভাপতি লুৎফুর রহমান লিটন, পিটিএ কমিটির সভাপতি মো.মহসিন, সহ-সভাপতি নাছির উদ্দিন, চৌমুহনী প্রেসক্লাবের দপ্তর সম্পাদক মো. আলাউদ্দিন, অভিভাবক সামছুর রহমান স্বপন, চন্দ্রগঞ্জ পূর্ব বাজর ব্যাবসয়ী ইমাম হোসেন প্রমূখ।
আরো উপস্থিত ছিলেন, আমির হোসেন, অহিদ মিয়া, ইব্রাহীম খলিল মঞ্জু, আব্দুল গোফরান, মোশারফ হোসেন । বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গৌরি শংকর নাথ সুষ্ঠুভাবে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা সম্পন্ন করার জন্য সকলকে ধন্যবাদ জানান।
এছাড়া সোনাইমুড়ী উপজেলায় যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস পালিত হয়। দিনের প্রথম প্রহরে শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পনের মধ্য দিয়ে দিবসটির কার্যক্রম শুরু হয়। এরপর সোনাইমুড়ী মডেল উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের কুচকাওয়াজ ও শরীরচর্চা প্রদর্শনী এবং পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠান হয়। বেলা ১২টায় উপজেলা মাঠে জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ভাষণের তাৎপর্য ও সরকারের উন্নয়ন অগ্রযাত্রা শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ জাতীয় পরিষদ সদস্য ও বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ¦ খন্দকার রুহুল আমিন।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা টিনা পালের সভাপতিত্বে ও প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আহমেদ উল্যাহ সবুজের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান আনোয়ারুল হক কামাল, উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি মমিনুল ইসলাম বাকের, সাধারণ সম্পাদক আফম বাবুল বাবু, সহ-সভাপতি মাহফুজুর রহমান ভিপি বাহার, জেলা পরিষদ প্যানেল চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন দুলাল, ওসি আবদুস সামাদ, তদন্ত ওসি ইমদাদুল হক, সাবেক ইউনিয়ন চেয়ারম্যান নুরুল হক ভিপি, জেলা যুবলীগ সদস্য আবু ছায়েম, আওয়ামীলীগ নেতা ক্যাপ্টেন আলা উদ্দিন আলো।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি ফাহমিদা হক, উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা মোশারফ হোসেন, প্রকৌশলী নিতাই চন্দ্র রায়, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ মোস্তফা হোসেন, শিক্ষা কর্মকর্তা খগেন্দ্র চন্দ্র সরকার, কৃষি কর্মকর্তা রতন চন্দ্র বর্মণ সহ বিভাগীয় কর্মকর্তাগণ।

এদিকে নোয়াখালীর সেনবাগে স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসে স্মৃতিস্তম্ভে শ্রদ্ধার্ঘ্য অর্পণ, জাতীয় পতাকা উত্তোলন, কুচকাওয়াজ, মুক্তিযোদ্ধাদের শোভাযাত্রা ও সংবর্ধনা, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগীতা সহ নানা কর্মসূচি পালনের মধ্যদিয়ে, উপজেলার বিভিন্ন স্হানে যথাযোগ্য মর্যাদায় দিবসটি পালিত হয়েছে।
দিবসের প্রথম প্রহরে ইউএন ও মিনহাজুর রহমানের নেতৃত্বে উপজেলা প্রশাসন, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, ওসির নেতৃত্বে পুলিশ প্রশাসন, সাংবাদিক খোরশেদ আলম ও সাংবাদিক এম এ আউয়ালের নেতৃত্বে সেনবাগ প্রেসক্লাব, আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও দলীয় অঙ্গ সংগঠন সহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান মুক্তিযদ্ধে স্মৃতিস্কম্ভে ফুলদিয়ে শ্রদ্ধার্ঘ্য অর্পণ করেন। এরপর সকালে সেনবাগ সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে স্থানীয় এমপি মোরশেদ আলম নির্বাহী অফিসার মিনহাজুর রহমান ও থানার ওসি মিজানুর রহমান জাতীয় পাতাকা ও শান্তি প্রতিক পায়রা উড়িয়ে দিবসের শুভ সূচনা করেন।এরপর বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহনে বিভিন্ন শারিরক কসরত প্রদর্শন করে। শেষে দুপুরে গনমিলনায়তনে ইউএনও মিনহাজুর রহমানের সভাপতিত্বে ও সমাজসেবা অফিসার নাছরুল্যা আল মাহমুদের পরিচালনায় বীরমুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন স্থানীয় সাংসদ আলহাজ্ব মোরশেদ আলম। সাবেক কমান্ডার এসএম আবদুল ওহাব, জনপ্রতিনিধি, প্রশাসনিক কর্মকর্তা, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ সহ মুক্তিযোদ্ধারারা বক্তব্য রাখেন। স্থানাীয় সাংসদ আলহাজ্ব মোরশেদ আলম সাড়ে ছয়শত মুক্তিযোদ্ধাকে উপহার দিয়ে সম্মানিত করেছেন

এছাড়া ও নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. এম অহিদুজ্জামান বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের লালিত স্বপ্ন একটি সুখী-সম্মৃদ্ধ সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠা করা। আমরা প্রত্যেকে যার যার অবস্থান থেকে সমস্ত মেধা, প্রজ্ঞা, সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠা করবো। মহান স্বাধীনতা দিবস ২০১৯ উদযাপন উপলক্ষে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (নোবিপ্রবি) আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন- জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান একজন ক্যারিশমাটিক নেতা ছিলেন। তিনি তার অসাধারণ মেধা ও প্রজ্ঞা এবং অসীম সাহসের সঙ্গে একটি পরাধীন জাতির নেতৃত্ব দিয়েছিলেন এবং একটি স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। যুগে যুগে অনেক রাজনীতিক নানা আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমে, কবি-সাহিত্যিকরা তাদের লেখনিতে স্বাধীন বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখেছিলেন। কিন্তু এদের কেউ তা বাস্তবায়ন করতে পারেনি। বঙ্গবন্ধু বাঙালির মুক্তিসংগ্রাম হৃদয় দিয়ে উপলব্ধি করেছিলেন এবং আমাদের একটি স্বাধীন ভূখ- উপহার দেন। তিনি একজন বলিষ্ঠ নেতা হিসেবে আপামর জনসাধারণের হৃদয়ে স্থান পেয়েছেন। ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষনে স্বাধীনতা সংগ্রামের ডাক দিয়েছিলেন।
উপাচার্য প্রফেসর ড. এম অহিদুজ্জামান বলেছেন, দ্বিতীয় বিশ^যুদ্ধের পর সবচেয়ে বেশি হত্যাকা- হয়েছিলো ১৯৭১ এর মহান মুক্তিযুদ্ধে। এ যুদ্ধে ৭ লাখ মা-বোন বর্বরোচিত নির্যাতনের শিকার হয়। নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ের এগিয়ে চলা নিয়ে তিনি আরো বলেন, বিশ^বিদ্যালয় হলো পুরো জাতির দিক-নির্দেশক। নোবিপ্রবি হলো তারুণ্য নির্ভর বিশ^বিদ্যালয়, এখানে দেশসেরা মেধাবীরা অধ্যায়ন করে। আর আমাদের শিক্ষার্থীরাই এ বিশ^বিদ্যালয়ের সমস্ত কর্মযজ্ঞের মাধ্যমে জাতিকে পথ দেখাচ্ছে। আজ কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে সহ¯্র কন্ঠে জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মাধ্যমে বিশ^বিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ অনন্য নজির স্থাপন করেছে। আর এভাবেই আমারা বিশে^র বুকে একটি উন্নত আত্মমর্যাদাশীল বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার কাজ করে যাচ্ছি। মঙ্গলবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের হাজি মো. ইদ্রিস অডিটোরিয়ামে স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী ও ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস ২০১৯’ শীর্ষক আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এতে অন্যান্যের মাঝে বক্তৃতা করেন নোবিপ্রবি কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফারুক উদ্দিন, মানবিক ও সমাজ বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. সৈয়্যদ আতিকুল ইসলাম, শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. গাজী মো. মহসিন, রেজিস্ট্রার প্রফেসর মো. মমিনুল হক, রিয়াকুক বিশ^বিদ্যালয়ের মাস্টার্স ফেলো নাকায়ামা কেইকো, অফিসার্স এসোসিয়েশন এর সভাপতি ডা. মো. মোখলেস-উজ-জামান, সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান, কর্মচারীদের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন মাহবুবুর রহমান লিপসন, নোবিপ্রবি’র ছাত্রলীগ সভাপতি শফিকুল ইসলাম রবিন। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের পালি ও সংস্কৃত বিভাগের অধ্যাপক ড. দিলিপ বড়ুয়া, নোবিপ্রবি ইনস্টিটিউটের পরিচালকবৃন্দ, বিভিন্ন বিভাগের চেয়ারম্যানবৃন্দ, হলের প্রভোস্টবৃন্দ, প্রক্টর, দপ্তরসমূহের পরিচালকবৃন্দ, শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দ, বঙ্গবন্ধু পরিষদ ও স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদের আহ্বায়কবৃন্দ, নোবিপ্রবি অফিসার্স এসোসিয়েশনের নেতৃবৃন্দ এবং ছাত্র-শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ। সভা সঞ্চালনা করেন শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক এবং ছাত্র পরামর্শ ও নিদের্শনা পরিচালক জনাব মো. নাসির উদ্দিন। সভায় জাপানের রিয়াকুক বিশ^বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে মাননীয় উপাচার্যকে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। উল্লেখ্য, মাননীয় উপাচার্যের আসন্ন জাপান সফরে তাকে ‘ ফ্রেন্ডস অব হিউম্যানিটি’ সম্মাননায় ভূষিত করা হবে। দিনব্যাপী নানা অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে স্বাধীনতা দিবস ২০১৯ পালন করে নোবিপ্রবি পরিবার। দিবসটি উদযাপনে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগ, ইনস্টিটিউট, হল ও ছাত্রফোরামগুলো ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও নানা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এছাড়া দিবস উদযাপনে বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলো শিক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ ভোজ ও অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করে। এদিন সকাল ৯টায় দিনের প্রথমভাগে মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. এম অহিদুজ্জামান এর নির্দেশনায় নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (নোবিপ্রবি) কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে ব্যতিক্রমী আয়োজনে সহস্্র কণ্ঠে ‘বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মবার্ষিকী ও মহান ন্বাধীনতা দিবস ২০১৯ সফল হোক’ শিরোনামে জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়। এতে বিশ^বিদ্যালয়ের সকল বিভাগের শিক্ষার্থীরা অংশ নেয়। এছাড়াও বিশ^বিদ্যালয় পরিবারের শিক্ষক-কর্মকর্তা, কর্মচারীবৃন্দ অংশগ্রহণ করে। এরপর বর্ণাঢ্য র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়। র‌্যালিটি কেন্দ্রীয় মাঠ থেকে শুরু হয়ে বিশ্ববিদ্যালয় ও পরিষদের পক্ষ থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে শেষ হয়। এরপর অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা সভা। সভাশেষে বিকেলে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।
এছাড়া এর আগের দিন (২৫ মার্চ ২০১৯) রাত ১২টায় বিশ^বিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহিদ মিনার প্রাঙ্গনে ২৫ মার্চের কালো রাতে বাঙালি জাতির ওপর বর্বরোচিত হত্যাযজ্ঞ স্মরণে ‘ব্ল্যাক আউট ও প্রদীপ প্রজ্জ্বলন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।
এর মাঝে (২৬ মার্চ ২০১৯) দুপুরে বিশ^বিদ্যালয় গোল”ত্ত্বরে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে নোবিপ্রবি’র শিক্ষার্থীদের জন্য ক্রয় করা তিনটি ৬০ সিটের গাড়ির শুভ উদ্বোধন করেন মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. এম অহিদুজ্জামান।
ও কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় যথাযোগ্য মর্যাদায় নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন বিভিন্ন কর্মসূচী হাতে নেয়। দিনের শুরুতে উপজেলা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুস্পস্তবক অর্পণের মধ্য দিয়ে কর্মসূচী শুরু হয়।
সকাল সাড়ে আটটায় বসুরহাট এ এইচ সি সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে পুলিশ, আনসার ও স্কাউট সদস্যদের কুচকাওয়াজ, শরীর চর্চা, ডিসপ্লে ও ক্রিড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। কুচকাওয়াজ পরিদর্শন করেন, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদল। এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফয়সাল আহমেদ, কোম্পানীগঞ্জ থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান, ভাইস চেয়ারম্যান আজম পাশা চৌধুরী রুমেল, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আরজুমান আরা পারভিন রুনু সহ প্রমূখ ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। কুচকাওয়াজে বাংলাদেশ পুলিশ, আনসার ভিডিপি, সরকারী মুজিব কলেজ রোবার স্কাউট, বসুরহাট এ এইচ সি উচ্চ বিদ্যালয়, মাকসুদাহ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, বসুরহাট ইসলামীয়া ফাযিল মাদ্রাসা, বসুরহাট একাডেমী, মানিকপুর উচ্চ বিদ্যালয়, আবু নাছের পৌর উচ্চ বিদ্যালয় স্কাউট দল সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের স্কাউট ও কাব দল অংশ গ্রহন করে। এছাড়াও দিনের অন্যান্য কর্মসূচীর মধ্যে, জাতীর শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা, ধর্মীয় উপাসনলয়ে প্রার্থনা, এতিমখানা সমুহে খাবার বিতরন, মহান স্বাধীনতা দিবস নিয়ে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান সহ রয়েছে নানা কর্মসূচি।

এছাড়াও নোয়াখালী কবিরহাটে ৪৯ তম মহান স্বাধীনতা দিবসে ৩১বার তোপাধ্বনীর মাধ্যমে শহীদ মিনাওে পুস্পস্তবক অর্পণ শেষে সকাল ৮ ঘটিকায় উপজেলা পরিষদ মাঠে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন, আনুষ্ঠানিক ভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, পুলিশ, বিএনসিসি, আনসার ভিডিপি, রোবার স্কাউট, গার্লস গাইড, স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসার ছাত্র/ছাত্রীদের কুচকাওয়াজ ও শরীর চর্চা প্রদর্শনীর মধ্য দিয়ে বেলা ১১ ঘটিকায় বীর মুক্তিযোদ্ধা ও শহিদ পরিবারের সদস্যদের সংবর্ধনা ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণের তাৎপর্য এবং দেশের উন্নয়ন অগ্রগতি” শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। কবিরহাট উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার শরিফুল ইসলামের সভাপতিত্ত্বে উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, কবিরহাট উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সুন্দলপুর মডেল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নুরুল আমিন রুমি, সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র জহিরুল হক রায়হান, কবিরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মির্জা মোঃ হাসান, বীর মুক্তিযোদ্ধা এনাম বাঙ্গালী, অজিউল্যা, আবুল কালাম ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড পরিষদের আহবায়ক স¤্রাট জাহাঙ্গীর, সম্পাদক ডা. শফিুকুর রহমান স্বপন সহ মুক্তিযোদ্ধা ও শহিদ পরিবারের সদস্য এবং উপজেলার সকল দপ্তরের কর্মকর্তা কর্মচারী বৃন্দ প্রমুখ।

Share Button

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *