অপো নিয়ে এলো মার্ভেলের অ্যাভেঞ্জার্স লিমিটেড এডিশন

ঢাকা বুরে‌্যা: বাংলাদেশের বাজারে ব্র্যান্ড নিউ মার্ভেল অ্যাভেঞ্জার্স লিমিটেড এডিশন এফ১১ প্রো স্মার্টফোন উন্মোচনের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিলো অপো। ডিভাইসটির অগ্রিম বুকিং ২৮ এপ্রিল থেকে শুরু হয়েছে এবং বাংলাদেশের বাজারে স্মার্টফোনটি পাওয়া যাবে ০৩ মে ২০১৯ তারিখ থেকে। লিমিটেড এডিশন এই হ্যান্ডসেটটির মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৪২,৯৯০ টাকা।
অ্যাভেঞ্জার্স থিমের ওপর ভিত্তি করে স্মার্টফোনটি বিশেষ ডিজাইন ও রং- এ নিয়ে আসা হয়েছে। যার নাম দেয়া হয়েছে স্পেস ব্লু। ষড়ভুজ আকৃতির বিশেষ ব্লু ব্যাকগ্রাউন্ডের ডিজাইনের ফোনটির ব্যাককভারে রয়েছে অপোর সিগনেচার গ্রেডিয়েন্ট এফেক্ট। বিভিন্ন আলোতে এ রং পরিবর্তিত হয়। মাঝের স্টিল ব্লু থেকে উভয় পাশেই রং গিয়ে রিবর্তিত হয় মিডনাইট ব্লু’তে। ঠিক যেনো গতিশীল ও রহস্যময় মহাবিশ্বের মাঝে কোনো বস্তুর মতো।
স্মার্টফোনটির ক্লাসিক রেড ব্লু রঙের ব্লকিং ব্যাকগ্রাউন্ডে রয়েছে বোল্ড রেড অ্যাভেঞ্জার্স ‘এ’। এর পাশে রয়েছে লাল সুইচ বাটন। পেছনে আকর্ষণীয় আংশিক লোগো এবং ক্যামেরার ওপরে পূর্ণ লোগো একসাথে তৈরি করেছে অ্যাভেঞ্জার্সের নন্দনতাত্ত্বিক সম্পূর্ণ লোগো। যেখানে অ্যাভেঞ্জার্সের ওপর সম্পূর্ণ গুরুত্ব দেয়া হয়েছে।
এছাড়াও, স্মার্টফোনের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে প্রতিটি স্মার্টফোনের সাথে থাকছে ক্যাপ্টেন আমেরিকা থিমের স্মার্টফোন কেস। স্মার্টফোনটি হাতে ধরার ক্ষেত্রে যা দিবে বিশেষ সুবিধা পাশাপাশি, নিশ্চিত করবে বাড়তি সুরক্ষা ও স্থায়ীত্ব।
অপো এফ১১ প্রো মার্ভেল অ্যাভেঞ্জার্স লিমিটেড এডিশন ব্যবহারকারীর কাছে মনে হবে সুপার হিরোর মতোই শক্তিশালী। এর কারণ হিসেবে শুরুতেই রয়েছে ক্যাপ্টেন আমেরিকার আইকনিক ফিচার। যা ফোনটির ডিজাইনের মূল প্রেরণা। এবং আয়রন ম্যান যেমন হাই-টেক আর্মার পরে উড়তে পারে তেমনি এই স্মার্টফোনেও রয়েছে উচ্চ প্রযুক্তির রাইজিং ক্যামেরা। থর বজ্রপাতের দেবতা, তেমনি এ ফোনে ভুক ফ্লাশ চার্জ ৩.০- এর সাহায্যে ফোনটি চার্জ হবে বজ্রগতিতে।
হাল্ক যেমন শক্তিশালী তেমনি স্মার্টফোনটির ৬ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি রমও এ স্মার্টফোনটিকে করে তুলেছে শক্তিশালী। এলিট এজেন্ট ব্ল্যাক উইডো যেমন অত্যন্ত ক্ষিপ্র ও দক্ষ, তেমনি হাইপার বুস্টের ফলে মাধ্যমে স্মার্টফোনটিও কাজ করবে কোনো রকম কোনো ঝামেলা ছাড়াই। সবশেষে, হকআই যেমন বিশেষ দক্ষ তীরন্দাজ তেমনি এফ১১ প্রো মার্ভেল অ্যাভেঞ্জার্স লিমিটেড এডিশনের ৪৮ মেগাপিক্সলের ডুয়াল রিয়ার ক্যামেরা ছবির প্রতিটি ডিটেইল ক্যাপচার করবে পারবে এবং ছবিকে করে তুলবে স্পষ্ট ঝকঝকে ছবি।
এ হ্যান্ডসেট নিয়ে অপো বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডামোন ইয়াং বলেন, ‘অনেক তরুণ ফ্যান রয়েছে যারা অ্যাভেঞ্জার্সের মতো শক্তিশালো ও আইকনিক কিছু চান। আমরা সর্বত্র সেসব তরুণদের কাছে পৌঁছানোর ক্ষেত্রে মার্ভেল স্টুডিও’র অ্যাভেঞ্জার্স: এন্ডগেমের সাথে অংশীদারিত্ব করতে পেরে আমরা অত্যন্ত আনন্দিত। আমরা আশাবাদী, ব্যবহারকারীদের প্রত্যাশা পূরণ করে তাদের সন্তুষ্ট করবে এ ফোন।’
তাই, সবমিলে, অপো এফ১১ প্রো মার্ভেল অ্যাভেঞ্জার্স লিমিটেড এডিশন দেখতে এবং ব্যবহারে মার্ভেল স্টুডিওর অ্যাভেঞ্জারস: এন্ডগেম ফ্যানদের জন্য উপযুক্ত সঙ্গী।
উদ্ভাবনী প্রযুক্তি, সূক্ষ্ম ডিজাইন ও অসাধারণ ক্যামেরা পারফরমেন্সের মাধ্যমে ক্রেতাদের ধারাবাহিকভাবে অসামান্য অভিজ্ঞতা দিয়ে আসছে বৈশ্বিক স্মার্টফোন ব্র্যান্ড অপো।
বিগত দশ বছর ধরে, মোবাইল ফটোগ্রাফি প্রযুক্তি নতুন উদ্ভাবনের মাধ্যমে ধারাবাহিকভাবে যুগান্তকারী পরিবর্তন নিয়ে আসার মাধ্যমে স্মার্টফোন তৈরি করে চলেছে অপো। প্রথম স্মার্টফোন ব্র্যান্ড হিসেবে স্মার্টফোনে ১৬ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা সংযুক্ত করে প্রতিষ্ঠানটি। এছাড়াও, প্রথম স্মার্টফোন ব্র্যান্ড হিসেবে স্বয়ংকৃত রোটেটিং ক্যামেরা, আল্ট্রা এইচডি ফিচার এবং ৫এক্স ডুয়াল ক্যামেরা জুম প্রযুক্তি নিয়ে আসে অপো।
তরুণদের চাহিদার কথা মাথায় রেখে ২০১৬ অপো সর্বপ্রথম সেলফি তোলায় প্রাধান্য দিয়ে ‘সেলফি এক্সপার্ট’ খ্যাত এফ সিরিজ স্মার্টফোন বাংলাদেশের বাজারে নিয়ে আসে। বাজারে আসা প্রথম ব্যাচের ফোনগুলো বিপুল সাড়া ফেলতে সক্ষম হয় পাশাপাশি, সেলফি কেন্দ্রিক স্মার্টফোনকেই ট্রেন্ডে পরিণত করে। ২০১৬ সালে আইডিসি’র তালিকায় স্মার্টফোন ব্র্যান্ডের র‌্যাংকিং- এ চতুর্থ স্থান অর্জন করে নেয় অপো। ২০১৭ সালে স্মার্টফোন ফটোগ্রাফিতে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা (এআই) যোগ করার মাধ্যমে সেলফি তোলায় এক নতুন যুগের সূচনা করে অপো। বর্তমানে পুরো বিশ্বজুড়েই স্মার্টফোন ফটোগ্রাফিতে তরুণদের পছন্দের তালিকায় স্থান করে নিচ্ছে এ স্মার্টফোন ব্র্যান্ডটি। ২০১৮ সালে বাজারে আসা প্যানারোমিক আর্ক ডিজাইনের ডিসপ্লে ­র ৯৩.৮% বডি টু ডিসপ্লে রেশিওযুক্ত অপো ফাইন্ড এক্স বর্তমানে মোবাইল ফোনের জগতে সর্বোচ্চ বডি টু ডিসপ্লে রেশিওযুক্ত ফোন।

Share Button

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *