হিমঘরে ৬ হামলাকারীর বেওয়ারিশ লাশ

স্টাফ রিপোর্টার: রাজধানীর গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারি রেস্তোরাঁয় হামলাকারীর ছয়জনের লাশ সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালের হিমঘরে বেওয়ারিশ হিসেবে পড়ে আছে।
গত শনিবার বিকালে লাশগুলি রেস্তোরাঁ থেকে উদ্ধার করা হয়। সোমবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত  লাশগুলো নিতে কেউ যোগাযোগ করেনি। লাশের দাবিও করেননি স্বজনেরা। ফলে বেওয়ারিশ হিসেবেই পড়ে আছে লাশগুলি।

গুলশানে নিহত ছয় হামলাকারীর মধ্যে চারজনের পরিচয় জানা গেছে। তারা হলেন, ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র রোহান ইবনে ইমতিয়াজ, স্কলাসটিকার সাবেক ছাত্র মীর সামিহ মুবাশ্বের, মালয়েশিয়ার মোনাস বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র নিবরাস ইসলাম ও বগুড়ার মাদ্রাসার ছাত্র খায়রুল ইসলাম।

তবে গুলশানে হামলার ঘটনায় নিহত দেশী-বিদেশী ২০ জিম্মির লাশ শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে তাদের পরিবার ও নিজ দেশের দূতাবাস কর্মকর্তাদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এদের মধ্যে ৩ বাংলাদেশী, ৯ ইতালিয়ান, ৭ জাপানি ও এক ভারতীয় নাগরিক রয়েছেন।

৬ জঙ্গির লাশের বিষয়ে জানতে চাইলে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর প্রভোস্ট মার্শাল যুগান্তরকে জানান, ‘তাদের লাশ সিএমএইচে রাখা হয়েছে। লাশগুলি আছে মূলত পুলিশের কাস্টডিতে। আমরা রাখার সুযোগ করে দিয়েছি। পুলিশ এবিষয়ে তদন্ত করছে। পুলিশই এসব লাশের বিষয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্তও নিবে।’

গুলশান থানা পুলিশ জানায়, সোমবার সন্ধ্যা পর্যন্ত ৬টি লাশের কোন দাবিদার ছিলো না। পরিবারের পক্ষ থেকেও কেউ লাশের দাবি করে যোগাযোগ করেনি বলে জানান গুলশান থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ সালাহ উদ্দিন।

দাবিদার না থাকলে মামলা হওয়ার পর তদন্ত সাপেক্ষে করে এবিষয়ে পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার রাতে গুলশান ২ নম্বরের হলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গিরা হামলা চালিয়ে দেশী-বিদেশী অন্তত ৩৩ জন জিম্মি করে।

সেনাবাহিনীর কমান্ডো অভিযানে শনিবার সকালে জিম্মি সংকটের অবসান হয়।

সেখান থেকে ১৩ জন জিম্মিকে জীবিত উদ্ধার করা হলেও ২০ জনের লাশ পাওয়া যায় জবাই করা অবস্থায়।

Share Button

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *