জুমার খুৎবা মনিটরিং করতে ‘প্রস্তুত’ ইফা

স্টাফ রিপোর্টার:  সরকারের সিদ্ধান্ত পেলে সারা দেশের সকল মসজিদের জুমার খুৎবা মনিটরিং করবে ইসলামিক ফাউন্ডেশন-ইফা।
সোমবার বিকালে ইফা’র মহাপরিচালক সামীম মোহাম্মদ আফজাল যুগান্তরকে এ কথা বলেন।

প্রসঙ্গত, গুলশানে সন্ত্রাসী হামলার প্রেক্ষাপটে রোববার আইন-শৃংখলা বিষয়ক মন্ত্রিসভা কমিটির এক বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে- মসজিদগুলোতে ইমামরা কোন ধরনের ধর্মীয় অনুশাসন প্রচার করছেন তার ওপর নজর রাখা হবে এবং অভিযোগ পেলে তা তদন্ত করা হবে।

এরপর এ বিষয়ে নানা মহল থেকে জুমার খুৎবায় নজরদারির কথা ওঠেছে।

এ বিষয়ে ইফা’র মহাপরিচালক বলেন, ‘সারা দেশের মসজিদগুলোর খতিবদের যোগ্যতার ভিন্নতার কারণে ভিন্ন ভিন্ন খুৎবা দেয়া হয়। সরকারি সিদ্ধান্ত পেলে আমরা জুমার খুৎবার বিষয়টি মনিটরিং করতে পারব।’

তিনি বলেন, ‘আমরা খতিবদের কোরআন-সুন্নাহ’র আলোকে খুৎবা দিতে উদ্বুদ্ধ করব। সচেতন করবো, যেন কেউ উস্কানি দিতে না পারে।’

সামীম আফজাল মনে করেন, কোরআন ও হাদিসের আলোকে এবং দেশের সংস্কৃতির সঙ্গে মিল রেখে জাতীয়ভাবে খুৎবা রচনা করা যেতে পারে। দেশের বিজ্ঞ আলেমরা এই খুৎবা রচনায় সহায়তা করতে পারেন বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘পৃথিবীর বহু দেশে খুৎবা সাধারণত রাষ্ট্র কর্তৃক রচনা করে দেয়া হয় এবং সেটা সকল মসজিদে পড়া হয়। আমাদের দেশ- বিশেষ করে বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তানে এ সিস্টেমটা সেভাবে চালু নেই।’

ইফার হিসেব অনুযায়ী বাংলাদেশে প্রায় তিন লক্ষ মসজিদ আছে। সব মসজিদের খতিব এবং ইমামদের চিন্তা এবং দৃষ্টিভঙ্গি একরকম নয়। ইসলামের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে তাদের মধ্যে মতপার্থক্য রয়েছে।

সামীম আফজাল বলেন, ‘বর্তমানে মাদারাসাগুলো থেকে দ্বীনি শিক্ষার কিছু ব্যত্যয় ঘটেছে। এ ব্যত্যয় পুনরুদ্ধার করতে গেলে আমাদের প্রকৃত আলেম তৈরি করতে হবে। মাদরাসা শিক্ষাকে স্বয়ংসম্পূর্ণ করতে হবে।’

Share Button

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *