হামলা-পাল্টা হামলা, সংঘর্ষ: চৌমুহনীতে সন্ত্রাসীদের প্রকাশ্যে অস্ত্রের মহড়া, আতঙ্ক

প্রতিনিধি: বৃহত্তর নোয়াখালীর প্রধান বানিজ্যিক কেন্দ্র চৌমুহনীতে এলাকায় অধিপত্য বিস্তার ও তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই গ্রামবাসীর মধ্যে হামলা-পাল্টা হামলা ও ঘংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছে। এ সময় সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে অস্ত্রের মহড়া দেয়। এ ঘটনায় স্থানীয় ব্যবসায়ীদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে। শুক্রবার রাত ৮ টার দিকে এই হামল ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, এলাকায় আধিপত্য বিস্তার ও তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ঈদের পর থেকেই শহরের করিমপুর ও গনিপুর গ্রামবাসীর মধ্যে উত্তেজনা চলছিলো। এর জের ধরে শুক্রবার সন্ধার পর উভয় গ্রামবাসী শহরের রেলওয়ে গেইট এলাকায় সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় হামলা-পাল্টা হামলা ও কয়েকটি দোকান ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। এতে উভয় গ্রামের অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছে হয়। আহতদের জেলা সদর, বেগমগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও বিভিন্ন প্রাইভেট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। হামলা ও সংঘর্ষের সময় একদল সন্ত্রাসী প্রকাশ্যে অস্ত্রের মহড়া দেয়। এতে স্থানীয় ব্যবসায়ীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে বেগমগঞ্জ মডেল থানা ও চৌমুহনী পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা এসে কয়েক ফাঁকা গুলি ও টিয়ারসেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।
চৌমুহনী শহরের একাধিক ব্যবসায়ী উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, শহরে অধিপত্য বিস্তার নিয়ে যে ভাবে হামলা ও সংঘর্ষ হয়েছে তাতে আমরা চিন্তিত। এমন ঘটনা কারোই কাম্য নয়। বিষয়টি দ্রুত তদন্ত করে সমাধান করা প্রয়োজন। না হয় এমন ঘটনা আরো ঘটার সম্ভাবনা রয়েছে।
এ ব্যাপারে জানতে বেগমগঞ্জ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) ফিরোজ হোসাইন মোল্লার সাথে আলাপ করতে মোবাইল দিলে তিনি কল ধরেননি।
পরে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বেগমগঞ্জ সার্কেল) শাহজাহান শেখ জানান, আমরা বিষয়টি তদন্ত করে দেখছি। কেউ অপরাধ করলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Share Button

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *