নোয়াখালীতে দুই শিক্ষার্থীকে ধর্ষনের অভিযোগ

প্রতিনিধি: নোয়াখালীর কবিরহাটে ও হাতিয়া উপজেলায় দুই শিক্ষাথীকে ধর্ষনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার বিকালে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ধর্ষনের শিকার দুই শিক্ষার্থীদের ডাক্তারি পরীক্ষ সম্পন্ন হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় পৃথক মামলা হলেও পুলিশ কোন আসামীকে গ্রেফতার করতে পারেনি। উল্টো আসামীদের হুমকিতে ভিকটিমদের পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছে।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, কবিরহাট উপজেলার ছাদুল্যাপুর গ্রামের এক স্কুল ছাত্রীর (১৩) একই গ্রামের আব্দুল গোফরানের ছেলে বখাটে সাইফুল (২২) প্রেমের সম্পর্ক ছিলো। এর সূত্র ধরে গত বুধবার সন্ধ্যর পরে সাইফুল ওই স্কুল ছাত্রীকে মোবাইলে ডেকে নির্জন স্থানে জোর পূর্বক ধর্ষন করে। ঘটনাটি জানা জানি হলে স্থানীয়রা সমাধানের চেষ্টা করে ব্যার্থ হন। বরং বখাটে উল্টো ভিকটিম পরিবারকে ফাঁসানোর জন্য কবিরহাট থানায় অভিযোগ দিলে পুলিশ ভিকটিমের পরিবারকে হয়রানির চেষ্টা করে। এতে নিরুপায় হয়ে রবিবার সকালে ভিকটিমের পিতা থানায় মামলা করতে যায়। কিন্তু পুলিশ মামলা না নিয়ে তালবাহানা করে। পরে মিডিয়া কর্মীরা জনতে পেরে ধর্ষকের পক্ষ নিয়ে ধর্ষিতার পরিবারকে হয়রানি করার বিষয়ে কবিরহাট থানার ওসি মির্জা হাসানকে জিজ্ঞাসা করলে তিনি অভিযোগ অস্বীকার করেন। পরে অবস্থা বেগতিক দেখে ওসি ধর্ষনের মামলা রেকর্ড করেন ও ডাক্তার পরীক্ষার জন্য ভিকটিমকে সদর হাসপাতালে পাঠান। এদিকে মামলা হলেও পুলিশ আসামী গ্রেফতার না করায় ধর্ষনের শিকার ওই স্কুল ছাত্রীর পরিবারের সদস্যরা নিরাপত্তাহীতায় ভূগছেন বলে অভিযোগ করেন।
তবে সোমবার সন্ধায় কবির হাট থানার ওসি মির্জা হাসান ধর্ষনের ঘটনায় দায়ের করা মামলার আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা বলছে বলে জানান।
অপরদিকে হাতিয়া উপজেলার নলেরচর ভূমিহীন বাজার এলাকার এক মাদ্রাসার ছাত্রীকে (১৪) মাদ্রাসার শিক্ষক সাইফুল ইসলাম(৩০) ধর্ষনের অভিযোগ উঠেছে। গত সোমবার মাদ্রসার ক্লাস রুমে নিয়ে জোর পূর্বক তাকে ধর্ষন করে পালিয়ে যায় ধর্ষক মাদ্রসা শিক্ষক। এ ঘটনায় আদালতে মামলা হলেও পুলিশ এখনও আসামিকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি।
হাতিয়া থানার ওসি আবুল খায়ের জানান, মাদ্রাসা ছাত্রী ধর্ষনের ঘটনাটি আমরা জানার পর ভিকটিমকে উদ্ধার করে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছি। আদালতে মামলা হয়েছে। আমরা আসামীকে গ্রেফতারের চেষ্টা করছি।

Share Button

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *