শশুর বাড়ির লোকজনের নির্যাতনে নিরুদ্ধেশ গৃহবধু

নিশান রিপোর্টার: নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে শশুর বাড়ির লোকজনের নির্যাতন সইতে না পেরে সইতে না পেরে তাছলিমা আক্তার(২২) নামের এক গৃহবধু নিরুদ্ধেশ হয়েছেন। নিখোঁজ গৃহবধু সোনাইমুড়ী উপজেলার নাটেশ^র গ্রামের ইউনিয়নের নাটেশ^র গ্রামের পোদ্দার বাড়ির শামছুল হকের প্রবাসী মো: ফারুকের স্ত্রী ও বেগমগঞ্জ উপজেলার নরোত্তমপুর ইউনিয়নের নরোত্তমপুর গ্রামের অহেদ আলী সর্দার বাড়ির তাজুল ইসলামের মেয়ে। এ ঘটনায় গৃহবধুর মা লেদি বেগম বেগমগঞ্জ মডেল থানায় সারাধণ ডায়রী করেছেন। এ নিয়ে নিখোঁজ গৃহবধুর পরিবারের সদস্যরা উদ্বেগ উৎকন্ঠার মধ্যে দিনাতিপাত করছে।
ডায়রী সূত্রে জানা যায়, তাছলিমাকে বিগত ২০১৭ সালে ইসলামী শরিয়া মোতাবেক পারিবারিক ভাবে ফারুকের কাছে বিয়ে দেয়া হয়। বিয়ের পর তাদের দাম্পত্য জীবনে একটি পুত্র সন্তান জন্ম হয়। কিন্তু বিভিন্ন সময় তাছলিমার শশুর বাড়ির লোকজন মোটা অংকের যৌতুক দাবী করাসহ নানা অজুহাতে অত্যাচার নির্যাতন করতো। মেয়ের সুখের কথা চিন্তা করে অনেক টাকা ধারদেনা করে তাছলিমার স্বামীকে ১ বছর পূর্বে প্রবাসে পাঠায়। প্রবাসে যাওয়ার পরও তাছমিলমার শশুর বাড়ির লোকজন তাকে অত্যাচার নির্যাতন অব্যাহত রাখে। এরি ধারাবাহিকতায় তাছলিমার শশুর বাড়ির লোকজন গত ২৭ জুলাই মারধর করে সন্তানসহ বাবার বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়। এর পর ২ আগষ্ট দুপুরে তাছলিমা কাউকে কিছু না জানিয়ে নিজের কোলের সন্তানটি রেখে বাড়ি থেকে নিরুদ্ধেশ হয়ে যায়। সন্তানটি বর্তমানে তার নানীর হেফাজতে রয়েছে। অনেক খোঁজাখুজির পর না পেয়ে গৃহবধু তাছলিমার মা লেদি বেগম বাদি হয়ে বেগমগঞ্জ মডেল থানায় সারাধণ ডায়রী করেছেন, যার নং-৩৫৭, তাং-৯-৮-২০২০ইং। তাছলিমার গায়ের রং শ্যামলা, উচ্চতা ৫ ফুট, মুখমন্ডল গোলাকার, চোখের রং কালো, চুলের রং কালো, স্বাস্থ্য হালকা পাতলা, পরনে ছিলো নীল রংয়ের প্রিন্টের জামা, নীল রংয়ের সোলেয়ার, লাল ও কালো রংয়ের বোরখা। সে নোয়াখালীর আঞ্চলিক ভাষায় কথা বলে। কেউ তার সন্ধান পেলে ০১৮৪০৯৯৭৯৭০ নাম্বারে জানানোর জন্য পরিবারের সদস্যদের পক্ষ থেকে অনুরোধ করা হয়েছে।

Share Button

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *