অনুসন্ধানী সংবাদিকতায় টিআইবি পুরস্কার পেলেন নোয়াখালীর সন্তান জাহিদ

স্টাফ রিপোর্টার: দুর্নীতি বিরোধী আন্তর্জাতিক সংস্থা ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ-টিআইবির ‘অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা পুরস্কার’ পেয়েছেন নোয়াখালীর সুবর্ণচরের সন্তান দৈনিক সমকালের সহসম্পাদক জাহিদুর রহমান। বৃহস্পতিবার রাজধানীর ধানম-িতে মাইডাস সেন্টারের মেঘমালা কনফারেন্স রুমে এক অনুষ্ঠানে ‘অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা পুরস্কার ২০১৮’ শীর্ষক এ পুরস্কার দেওয়া হয়।
প্রিন্ট মিডিয়া জাতীয় ক্যাটাগরিতে দৈনিক সমকালের বিশেষ প্রতিনিধি রাজীব নূর ও সহসম্পাদক জাহিদুর রহমান এবং দৈনিক প্রথম আলোর সিনিয়র রিপোর্টার আনোয়ার হোসেন, প্রিন্ট মিডিয়া আঞ্চলিক ক্যাটাগরিতে খুলনার দৈনিক প্রবাহর সিনিয়র রিপোর্টার মোহাম্মদ নুরুজ্জামান পুরস্কার জিতেছেন। ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া প্রতিবেদন ক্যাটাগরিতে একাত্তর টেলিভিশনের বিশেষ প্রতিনিধি মুফতি পারভেজ নাদির রেজা এবং মাছরাঙা টেলিভিশনের পাবনা ব্যুরোর সিনিয়র রিপোর্টার উৎপল মির্জা পুরস্কার পেয়েছেন। ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া প্রামাণ্য অনুষ্ঠান ক্যাটাগরিতে যমুনা টেলিভিশনের ‘৩৬০ ডিগ্রি’ ও ইন্ডিপেন্ডেন্ট টেলিভিশনের ‘তালাশ’ পুরস্কার জিতেছে। বিজয়ী সাংবাদিকদের প্রত্যেককে সম্মাননাপত্র, ক্রেস্ট ও এক লাখ ২৫ হাজার টাকার চেক দেওয়া হয়।
নোয়াখালীর সুবর্ণচর নিয়ে ‘দখল হয়ে যাচ্ছে নতুন বাংলাদেশ’, ‘উজাড় হয়েছে বন, অরক্ষিত উপকূল’ এবং ‘ডাঙায় ক্ষুধা, জলে দস্যু’ শিরোনামে তিনটি প্রতিবেদনের জন্য সমকালের রাজীব নূর ও জাহিদুর রহমান পুরস্কার জেতেন।
টিআইবির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান সুলতানা কামালের সভাপতিত্বে ও নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামানের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থেকে পুরস্কার তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আন্তর্জাতিক সম্পর্কবিষয়ক উপদেষ্টা গওহর রিজভী। এ সময় বক্তব্য দেন প্রাবন্ধিক ও সাংবাদিক আবুল মোমেন, দৈনিক প্রথম আলোর ফিচার সম্পাদক সুমনা শারমিন, ডিবিসি চ্যানেলের সম্পাদক জায়েদুল আহসান পিন্টু ও সংবাদ সংস্থা ইউএনবির নির্বাহী সম্পাদক রিয়াজ আহমেদ। তারা ‘অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা পুরস্কার ২০১৮’-এর বিচারক ছিলেন।
১৯৮৬ সালের ২৮ নভেম্বর নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলার পূর্বচরবাটা গ্রামে জাহিদুর রহমান জন্মগ্রহণ করেন। এটিএম লূৎফুর রহমান ও আনোয়ারা বেগম দম্পতির ৭ সন্তানের মধ্যে তিনি পঞ্চম। তার বাবা ৪০ বছরেরও বেশি সময় ধরে শিক্ষকতা করেন। তিনি অবসর নিলেও এখনও এলাকায় শিক্ষাসহ সমাজ সেবামূলক নানা কাজে যুক্ত রয়েছেন। জাহিদ বেগমগঞ্জ টেকনিক্যাল স্কুল এ্যান্ড কলেজ থেকে এসএসসি, নোয়াখালী পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ থেকে এইচএসসি ও স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতায় স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন।
জাহিদুর রহমান নোয়াখালীর স্থানীয় ‘লোকসংবাদ’ পত্রিকায় ২০০২ সালে ‘তৃণমূল সংবাদকর্মী’ হিসেবে যোগদানের মধ্য দিয়ে সাংবাদিকতা শুরু করেন। কাজের ধারাবাহিকতায় ২০০৫ থেকে ২০০৬ সালে ‘চলমান নোয়াখালী’তে স্টাফ রিপোর্টার এবং ২০০৬ থেকে ২০০৯ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত দৈনিক ‘জাতীয় নিশানে’ বার্তা সম্পাদক পদে দায়িত্ব পালন করেন তিনি। এরপর জাহিদ ২০০৯ সালে ঢাকায় চলে আসেন। তিনি ২০০৯ থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত নিউজ এজেন্সি ‘ফোকাস বাংলা’য় সহ-সম্পাদক হিসেবে কাজ করেন। ২০১০ সালে তিনি অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘শীর্ষ নিউজ ডটকমে’ একই পদে যোগদান করেন। এরপর তিনি ২০১১ সালের শেষের দিকে ‘দৈনিক স্টক বাংলাদেশ’, ‘স্বাধীন মত’ ও ‘বাংলামেইল’-এ সহ-সম্পাদক পদে কাজ করেন। সর্বশেষ তিনি ২০১৩ সালের মার্চে সহ-সম্পাদক পদে ‘সমকালে’ যোগদান করেন।
২০১৪ সালে ইউনিসেফ মীনা মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড প্রিন্ট ক্যাটাগরিতে প্রথম পুরস্কার পান জাহিদ। এর আগে তিনি ২০০৯ সালে ফিচার প্রতিযোগিতায় ‘আলোকিত ফেনী’ পুরস্কার এবং ২০০৪ সালে ম্যাসলাইন মিডিয়া সেন্টার (এমএমসি) প্রবর্তিত ‘প্রাকৃতজন’ পুরস্কার লাভ করেন। চলতি বছরে কিশোর-কিশোরীদের বয়ঃসন্ধিকালীন সমস্যা নিয়ে নেদারল্যান্ডস দূতাবাসের অর্থায়নে রেড অরেঞ্জ মিডিয়া এন্ড কমিউনিকেশনের ঋতু প্রকল্প থেকে গ্রহন করেন ফেলোশিপ এবং সংবাদের সামাজিক প্রভাবের কারণে নরওয়ের রাষ্ট্রদূতের কাছ থেকে ইয়ুথ স্কুল ফর সোশ্যাল এন্টারপ্রেনারস (ওয়াইএসএসই) প্রবর্তিত পুরস্কার লাভ করেন। খাদ্য অধিকার বিষয়ক রিপোর্টিংয়ের জন্য ২০১৮ সালে জাহিদকে ফেলোশিপ অ্যাওয়ার্ড প্রদান করে ‘খাদ্য নিরাপত্তা নেটওয়ার্ক-(খানি)’। ২০১৭ সালে রিয়্যাল এস্টেট বিষয়ক বিশেষ প্রতিবেদনের জন্য ‘আবাসন নিউজ’ বর্ষসেরা সাংবাদিকতা পুরস্কার অর্জন করেন। পাশাপাশি দৈনিক সমকালের দুইবার ‘সেরা রিপোর্টারে’র পুরস্কার পান তিনি।

Share Button

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *