উন্নয়ন সৈনিক নিহত আনসার সদস্যের পরিবারের দায়িত্ব নিলেন কিরন এমপি

স্টাফ রিপোর্টার: নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে ভোট কেন্দ্রে দায়িত্বরত অবস্থায় দূর্বৃত্তের গুলিতে নিহত বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর সদস্য নূর নবীর হেঞ্জুর পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছে নোয়াখালী-৩ বেগমগঞ্জ আসনের সংসদ সদস্য মামুনুর রশিদ কিরন। বুধবার সকালে নিহত আনসার সদস্য নুর নবীর বেগমগঞ্জ উপজেলার আমানুল্যাহ্পুরস্থ বাড়িতে নোয়াখালী-৩ আসনের সংসদ সদস্য মামুনুর রশিদ কিরনের পক্ষ থেকে নিহতের স্ত্রী নাছিমা আক্তারের হাতে অনুদানের টাকা তুলে দেন মামুনুর রশিদ কিরণের বড় ছেলে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সদস্য জিহান আল রশিদ। এসময় জিহান জানান, নিহত আনসার সদস্য নুর নবীর পরিবারের একজনকে চাকুরি দেয়া হবে। তার তিন সন্তানের পড়ালেখার খরচ বহন ও মাসিক অনুদান প্রদান করা হবে সংসদ সদস্য মামুনুর রশিদ কিরন এর পক্ষ থেকে। এছাড়াও সরকারী বিভিন্ন সংস্থা দেয়া থেকে তার পরিবারের সদস্যদের দেয়া হচ্ছে সহযোগীতা। দেশের গণতন্ত্র ও উন্নয়ন সমুন্বত রাখতে জীবণ দেওয়ায় স্থানীয় প্রশাসন এই আনসার সদস্যকে উপাদি দিয়েছে “উন্নয়ন সৈনিক” হিসেবে। এদিকে এই খুনের ঘটনার সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবী জানিয়েছে পরিবারের সদস্যরা ও এলাকাবাসী। অপরাধীদের গ্রেফতারের আশ্বাস দিয়েছে প্রশাসন। জানা যায়,
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন চলকালে বেগমগঞ্জ উপজেলার তুলাচারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে অন্যান্যদের মতো দায়িত্বে ছিলেন অস্থায়ী নিয়োগ পাওয়া আনসার সদস্য নুর নবী হেঞ্জু। সকাল থেকে ভোট কেন্দ্রটিতে শান্তিপূর্নভাবে ভোট চললেও বেলা সাড়ে ১২ টার সময় একদল দূবৃত্ত অস্ত্র শস্ত্র নিয়ে কেন্দ্রটি দখল করার চেষ্টা করে। এসময় দায়িত্বরত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অন্যান্য সদস্যরা আত্মরক্ষাথে একটি কক্ষে আশ্রয় নিলেও কেন্দ্র দখলে বাঁধা দেন আনসার সদস্য নুর নবী হেঞ্জু। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে দূবৃত্তরা নুর নবী হেঞ্জুকে লক্ষ করে গুলি করে পালিয়ে যায়। পরে এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তাররা তাকে মৃত ঘোষনা করেন।
নিহত হেঞ্জুর পরিবারে সন্তানসম্ভাবনা স্ত্রী ও তিন মেয়ে রয়েছে। উপার্জনক্ষম একমাত্র ব্যাক্তিকে হারিয়ে পরিবারটি দিশে হারা হয়ে পড়ে। বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর নোয়াখালী জেলা কামন্ডিং অফিসার সৈয়দ ইফতেহার আলী নিহত আনসার সদস্য পরিবারকে শান্ত¡না দিতে তাঁর বাড়ী গিয়েছেন বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর নোয়াখালী জেলা কমান্ডিং অফিসার সৈয়দ ইফতেহার আলী। এসময় তিনি মহাপরিচালকের ব্যক্তিগত তহবিল থেকে একলাখ টাকা চেক দেন এবং নিয়ম অনুযায়ী তিনি ক্ষতিপূরণ ও তার সহাসিকতার জন্য সরকারের পক্ষ থেকে পদক দেয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহনে বিষয়টি জানান। এ ব্যাপারে বেগমগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুহুল আমিন নিহত নুর নবীকে উন্নয়ন সৈনিক হিসেবে আখ্যা দেন। বেগমগঞ্জ মডেল থানা অফিসার ইনচার্জ ফিরোজ হোসাইন মোল্লা জানান, এ ঘটনায় জড়িত দূবৃত্তদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন । আমান উল্যাপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আরিফুল ইসলাম, হত্যাকারীদের চিহ্নিত করে দ্রুত গ্রেপ্তার ও অসহায় পরিবারটির পাশে সরকার সহ সমাজের বিত্তবানদের এগিয়ে আসার দাবি জানান।
শুধু নুর নবী হেঞ্জু নয়, রাষ্ট্রের এমন গুরুত্বপূর্ন দায়ীত্ব পালন কালে নিহত সকল আনসার সদস্যের পরিবারের পাশে দাঁড়াবে সরকারসহ সংশ্লিষ্ঠ কর্তৃপক্ষ এমনটাই প্রত্যাশা সকলের।

Share Button

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *