বেগমগঞ্জে দু’গ্রামের মানুষের ভরসা বাঁশের সাঁকো

স্টাফ রিপোর্টার: নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার দক্ষিণ-পশ্চিম হাজীপুর ও একলাশপুর গ্রামের মিদ্দা বাড়ীর সামনে দিয়ে বয়ে যাওয়া নোয়াখালী খালের উপর একটি পাকা সেতু না থাকায় দু’গ্রামের হাজার হাজার মানুষ ঝুঁকিপূর্ণ বাঁশের সাঁকো দিয়ে প্রতিদিন পারাপার হচ্ছে। স্থানীয়দের দীর্ঘদিনের দাবি এখানে একটি সেতু নির্মাণ করার জন্য। কিন্তু এখনো স্বপ্নই রয়ে গেল। আর দু’গ্রাম বাসী তাদের সন্তানদের পড়ালেখা ও দৈনন্দিক যাতায়াতের কথা চিন্তা করে কয়েক বছর আগেই এখানে তৈরী করা হয়েছে একটি বাঁশের সাঁকো। সেই সাঁকো দিয়ে প্রতিদিন প্রায় হাজার খানেক শিক্ষার্থীরা তাদের পড়ালেখার জন্য বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে পাঠদান করে থাকেন। সাঁকোটির নিচ দিয়ে নোয়াখালী খাল বয়ে যাওয়ায় বর্ষাকালে তা অনেকটাই নড়বড়ে ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে যায়। ফলে এখানকার গ্রাম বাসিদের শেষ ভরসা নৌকাই হয়ে থাকে। এলাকাবাসীরা মনে করেন দু’গ্রামের সীমানাবর্তী হওয়ায় গুরুত্বপূর্ণ এ স্থানে নির্মাণ করা হচ্ছে না সেতু । আর এ জন্যই বছরের পর বছর এখানকার মানুষদের এমন ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।
স্থানীয় এক গ্রাম বাসী বলেন, আমাদের দৈনন্দিক নিত্য প্রয়োজনীয় কাজে আমরা প্রায় চৌমুহনীতে আসতে হয়।
আবার আমাদের গ্রামের অনেকই কৃষি কাজ করে থাকে। বাজার থেকে কৃষিপণ্য ক্রয়-বিক্রয় ও নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য নিয়ে এই সাঁকো দিয়েই ঝুঁকিপূর্ণ ভাবে আমাদের পারাপার হতে হয়। বিশেষ করে আমাদের এলাকার ছেলে মেয়েদের স্কুল-কলেজ ও মাদ্রাসা পড়–য়া ছাত্র-ছাত্রীদের এই সাঁকো দিয়ে পারাপার করতে হয় বলেই প্রতিনিয়ত অভিভাবকদের মাঝে কিছুটা আতঙ্ক বিরাজ করে থাকে। এখানে কোনো মানুষ যদি হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ে তাহলে তাকে হাসপাতালে নিতে ব্যাপক দূভোর্গ পোহাতে হয়। তাই স্থানীয়রা জনপ্রতিনিধি ও সেতুমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষন করছেন যেন দ্রুত এই সাঁকো দিয়ে একটি সেতু নির্মাণ করে এখানকার মানুষের দীর্ঘদিনের আশার প্রতিফলন হয়।

Share Button

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *