সংসদ নির্বাচন: নোয়াখালীর ৬টি আসনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন কিনলেন যারা

ইয়াকুব নবী ইমন: আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তফসিল ঘোষনার পর থেকেই আওয়ামীলীগ দলীয় সম্ভাব্য প্রার্থীরা মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করতে শুরু করেছেন। গত দু’দিনে নোয়াখালীর ৬টি সংসদীয় আসনে নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার জন্য ১৬ জন মনোনয়নপত্র কিনেছেন। এরমধ্যে অনেক প্রবিন ও নবীন প্রার্থীও রয়েছেন। রয়েছেন বিগত দিনে একাধিকবার নির্বাচিত এমপি-মন্ত্রীও।
জানা গেছে, নির্বাচন যতই ঘনিয়ে আসছে নোয়াখালীর নির্বাচনী পরিবেশ ততই উত্তপ্ত হচ্ছে। এখানে ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ থেকে একই আসনে একাধিক প্রার্থীকে মনোনয়নপত্র কিনতে দেখা গেছে। এরমধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে-নোয়াখালী-১ (চাটখিল-সোনাইমুড়ী) আসনের আওয়ামীলীগের মনোনয়ন কিনেছেন বর্তমান সংসদ সদস্য এইচ এম ইব্রাহীম, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ব্যক্তিগত সহকারী জাহাঙ্গীর আলম, আওয়ামীলীগের জাতীয় কমিটির সদস্য খন্দকার রুহুল আমিন।
এদিকে বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি থেকে কোনো সিদ্ধান্ত না আসায় এখন পর্যন্ত বিএনপির পক্ষ থেকে কেউ মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেননি। তবে এই আসনে বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে রয়েছেন সাবেক সংসদ সদস্য ও সুপ্রিয় কোর্ট আইনজীবি সমিতির সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন। এখনে জাতীয় পার্টির একাধিক প্রার্থী থাকলেও এখনো পর্যন্ত কেউ মনোনয়ন সংগ্রহ করেননি।
নোয়াখালী-২(সেনবাগ-সোনাইমুড়ী আংশিক) আসনে আওয়ামীলীগের সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন বর্তমান সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মোরশেদ আলম, তমা গ্রুপের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আতাউর রহমান ভুঁইয়া মানিক, সেনবাগ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব জাফর আহম্মদ চৌধুরী, সানজি গ্রুপের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম মানিক, কেন্দ্রীয় কৃষকলীগের সদস্য মোশারফ হোসেন আলমগীর, বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির সাধারন সম্পাদক ড. জামাল উদ্দিন আহমেদ। বিএনপির কেন্দ্র থেকে কোনো সিদ্ধান্ত না আসায় এখন পর্যন্ত বিএনপির পক্ষ থেকে কেউ মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেননি। তবে এই আসনে বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে রয়েছেন সাবেক সংসদ সদস্য ও খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা জয়নুল আবেদীন ফারুক এবং কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কাজী মফিজুর রহমন। এখানে জাতীয় পার্টি থেকে এখনো কেউ মনোনয়ন সংগ্রহ করেননি। তবে জাতীয় পার্টির প্রার্থী হিসেবে মাঠে রয়েছেন সেনবাগ উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি হাসান মঞ্জুর।
নোয়াখালী-৩ (বেগমগঞ্জ) আসনে আওয়ামীলীগের প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন বর্তমান সংসদ সদস্য, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও গ্লোব গ্রুপের চেয়ারম্যান মামুনুর রশিদ কিরন, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও মোনাজ গ্রুপের চেয়ারম্যান মিনহাজ আহমেদ জাবেদ, ইন্ট্রামেক্স গ্রুপের চেয়ারম্যান এটি এম এনায়েত উল্যাহ, চৌমুহনী পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র আক্তার হোসেন ফয়সাল, কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ নেত্রী লুৎফুন্নাহার মুন্নি ।
বিএনপির কেন্দ্র থেকে কোনো সিদ্ধান্ত না আসায় এখন পর্যন্ত বিএনপির পক্ষ থেকে কেউ মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেননি। তবে এই আসনে বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে রয়েছেন কেন্দ্রীয় বিএনপির ভাইচ চেয়ারম্যান ও সাবেক সংসদ সদস্য বরকত উল্যা বুলু ও তার সহধর্মীনি জেলা বিএনপির সদস্য লাকি আক্তার।
এই আসনে জাতীয় পার্টির অবস্থানও মোটামুকি শক্ত। তবে এখনো কেউ মনোনয়ন সংগ্রহ করেননি। মাঠে রয়েছেন উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি ও কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ফজলে এলাহী সোহাগ মিঞা।
নোয়াখালী-৪(সদর-সুবর্নচর) আসনে আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন সংগ্রহ করেছেন জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরী।
বিএনপির কেন্দ্র থেকে কোনো সিদ্ধান্ত না আসায় এখনো পর্যন্ত বিএনপির পক্ষ থেকে কেউ মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেননি। তবে এই আসনে বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে রয়েছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক সংসদ সদস্য শাহজাহান।
এখানে জাতীয় পার্টি থেকে এখনো কেউ মনোনয়ন সংগ্রহ করেননি। তবে জাতীয় পার্টির একাধিক ব্যক্তি মাঠে রয়েছেন।
জেলার ভিআইপি আসন হিসেবে পরিচিত নোয়াখালী-৫(কোম্পানীগঞ্জ) আসন। এ আসনে আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে মনোনয়ন সংগ্রহ করেছেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।
বিএনপির কেন্দ্র থেকে কোনো সিদ্ধান্ত না আসায় এখনও কেউ মনোনয়ন সংগ্রহ করেননি। তবে বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থী রয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক এমপি ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ। এখানে জাতীয় পার্টি থেকে এখনো কেউ মনোনয়ন সংগ্রহ করেননি। তবে একাধিক প্রার্থী মাঠে রয়েছেন।
নোয়াখালী-৬(হাতিয়া) আসনে থেকে আওয়ামীলীগের প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন বর্তমান সংসদ সদস্য আয়েশা ফেরদাউস ও সাবেক এমপি মোহাম্মদ আলী।
বিএনপির কেন্দ্রীয় হাইকমান্ড থেকে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত না আসায় কেউ মনোনয়নপত্র নেননি। তবে বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থী রয়েছেন সাবেক এমপি প্রকৌশলী ফজলুল আজিম।
এখানে জাতীয় পার্টি থেকে একাধিক প্রার্থী মাঠে থাকলেও এখনো পর্যন্ত কেউ মনোনয়ন সংগ্রহ করেননি।

Share Button

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *