রাতেও আলোকিত প্রত্যান্ত গ্রাম কুতুবপুর!

স্থানীয় যুব সমাজের একটি উদ্যোগ অন্ধকার দুর করে রাতেও আলোকিত গ্রামে রূপ নিচ্ছে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার প্রত্যান্ত গ্রাম কুতুবপুর। রাতের আধারে পথচারীদের চলাচলের সুবিধা ও সামাজিক অপরাধ রোধে কৃত্তনীয়ার হাট (কুতুবপুর বাজার) থেকে খামার বাড়ি পর্যন্ত সড়কের পাশে ল্যাম্পপোষ্ট স্থাপনের মাধ্যমে দুর হতে যাচ্ছে রাতের অন্ধকার। শুক্রবার রাতে এই কর্মসূচীর উদ্বোধন করেন দৈনিক জাতীয় নিশান সম্পাদক, বাংলা টিভির নোয়াখালী প্রতিনিধি ও ডেইলি অবজারভার পত্রিকার বেগমগঞ্জ প্রতিনিধি ইয়াকুব নবী ইমন। “সমাজের উন্নয়নই আমাদের মূল লক্ষ” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে এ উপলক্ষে উত্তর পশ্চিম কুতুবপুর ইউছুফ উদ্দিন হাজি বাড়ি সংলগ্ন মদিনাতুল উলুম কওমী মাদ্রাসা হল রুমে হাফেজ জাফর উল্যাহ স্বপনের সভাপতিত্বে ও মো: ফারুকের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম হিরন। বিশেষ অতিথি ছিলেন চৌমুহনী প্রেসক্লাবের সহ-সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক ভোরের ডাকের বেগমগঞ্জ প্রতিনিধি এম মজিদুল ইসলাম, ইউপি সদস্য মোহরম হোসেন মোহন । অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ল্যাম্পপোষ্ট স্থাপনের উদ্যোক্তা ও ঢাকার চক বাজারের ব্যবসায়ী ইউছুফ নবী ইবন। এ সময় হাজী নুরুল আমিন, হাজী খলিলুর রহমান, আনোয়ার হোসেন বাবুল, আবদুস সাত্তার, তোফায়েল আহম্মম মানিক, নুর নবী সহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন । রাতের বেলায় পথচারীদের চলাচলের সুবিধা ও সামাজিক অপরাধ রোধে এই সড়ক বাতি ভুমিকা রাখবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্ঠরা। পর্যায়ক্রমে ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে এই ল্যাম্পপোষ্ট স্থাপন করা হয়ে জানায় উদ্যোক্তরা।
ল্যাম্পপোষ্ট স্থাপন কর্মসূচীর উদ্বোধক দৈনিক জাতীয় নিশান সম্পাদক, বাংলা টিভির নোয়াখালী প্রতিনিধি ও ডেইলী অবজারভা পত্রিকার বেগমগঞ্জ প্রতিনিধি ইয়াকুব নবী ইমন বলেন, সমাজের যে কোন ভালো কাজে আমরা সাথে আছি, তেমনি খারাব কাজের বিরুদ্ধে আমার অবস্থান স্পষ্ট। সমাজের ভালোর জন্য সবাইকে সাথে নিয়ে কাজ করতে হবে আমাদের। তিনি সামাজিক অপরাধ রোধে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানিয়ে আরো বলেন, সড়কের এই আলো যেন আমরা নিজেদের ঘরে নিতে পারি, নিজের আলোকিত হবো ও সমাজকে আলোকিত করবো এই হোক আমাদের অঙ্গিকার। এই আয়োজনের জন্য তিনি আয়োজকদের ধন্যবাদ জানান। প্রধান অতিথি কুতুবপুর ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম হিরন বলেন, এখানে যারা এসেছে অনেককেই আমি চিনি, জানি। সবাই ভালো, খারাবরা এখন আড্ডা খানায় চলে গেছে। যে কোন ভালো কাজে আমাদের সহযোগীতা থাকবে। এলাকার সবাই মিলে মাদক ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে অবস্থান নিতে হবে। তিনি বলেন, আজকে যারা এই উদ্যোগ নিয়েছে তারা ভালো একটি কাজ করেছে, আমার পক্ষ থেকে আমি তাদের ধন্যবাদ জানাই। এ ভাবে ভালো কাজে যেন সবাই এগিয়ে আসেন। ইউনিয়নের অন্যান্য স্থানেও যেন এমন উদ্যোগ নিতে হবে। এমপি সাহেবের সহযোগীতায় তিনি এলাকার রাস্তা সমস্যা সমাধানের আশ^াস দেন। সড়কে ল্যাম্পপোষ্ট স্থানে যারা আর্থিক ভাবে সহযোগীতা করেছেন তারা হলেন-মো: কবির হোসেন, মো: মামুন, মো: জামাল হোসেন, মো: তাজুল ইসলাম, মো: মনিরুজ্জামান মন্টু, মো: ইউছুফ নবী ইবন। বিদ্যুৎ সহযোগীতায় রয়েছেন-হাজী নুরুল আমিন, হাজী খলিলুর রহমান, সানা উল্যাহ মিয়া, আবদুল হাই, রমজান আলী, হাফেজ জাফর উল্যাহ স্বপন, আনোয়ার হোসেন বাবুল, আবদুস সাত্তার, মো: জাহাঙ্গীর হোসেন, মো: মিজান, মো: অলী উল্যাহ, মো: সাইফুল ইসাম। সার্বিক সহযোগীতায়- মো: পিয়াস, সাইফুল ও শাহাদাত হোসেনসহ এলাকার যুব সমাজ।
যুব সমাজের এমন উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়ে এলাকার সচেতন মহল।

Share Button

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *