সুলতানপুর হানিফ ভূঁইয়া স্কুল এন্ড কলেজে দায়সারা বই উৎসব, ক্ষুব্দ এলাকাবাসী

  • আপডেট সময় : রবিবার, জানুয়ারি ১, ২০২৩
  • 119 পাঠক

জাতীয় নিশান প্রতিবেদক:
নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার আলাইয়ারপুর ইউনিয়নের সুলতানপুর হানিফ ভূঁইয়া স্কুল এন্ড কলেজে দায়সারা ভাবে বছরের প্রথম দিন বই উৎসব করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, অভিভবাক ও এলাকাবাসী ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। এ নিয়ে এলাকায় বিরুপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।
জানা গেছে, বছরের প্রথম দিন সরকার প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে জাকজমকপূর্ন ভাবে বই উৎসব করার নির্দেশনা দেয়। কিন্তু সুলতানপুর হানিফ ভূঁইয়া স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মোফাজ্জল হোসাইন প্রতিষ্টান পরিচালনা কমিটির সভাপতি বা কমিটির কোন সদস্যদের সাথে পরামর্শ না করে নিজের খেয়াল খুশি মতো দায়সারা ভাবে শিক্ষার্থীদের মাঝে বই বিতরনের আয়োজন করেন। অনুষ্ঠানের জন্য তৈরী করা হয়নি কোন ব্যানার। প্রতিষ্ঠান পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও আলাইয়ারপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিনকেও প্রোগ্রামের বিষয়ে আগাম কিছু জানানো হয়নি। ১লা জানুয়ারী সকাল ১১ টায় প্রোগামের সময় নির্ধারণ করা হলেও ৩১ ডিসেম্বর রাত ৯ টায় সভাপতিকে জানানো হয়। শুধু তাই নয়, সুলতানপুর হানিফ ভূঁইয়া স্কুল এন্ড কলেজের কোন শিক্ষার্থীকেও ঠিক মতো বই বিতরনের বিষয়টি জানানো হয়নি। ছাড়া শিক্ষার্থীদের অভিভাবক ও এলাকার কাউকে এই উৎসবে দাওয়াত দেয়া হয়নি। এ নিয়ে এলাকায় বিরুপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।
কয়েজন অভিভাবক ও এলাকাবাসী জানান, আমাদের ঘরের পাশে প্রতিষ্ঠান অথচ আমরা কোন কিছুই জানিনা। এটা দু:খজনক।
এ বিষয়ে প্রতিষ্ঠান পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও আলাইয়ারপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন জানান, আমি এই প্রতিষ্ঠানের সভাপতি হলেও অধ্যক্ষ সাহেব আমার সাথে কোন যোগাযোগ করেননি। গতরাতে আমাকে কল দিয়েছেন যাওয়ার জন্য আমি অনেকটা রাগ করে যাইনি। সরকারের এতো বড় একটা প্রোগ্রাম। সারা দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে উৎসবমুখর পরিবেশে পালনা করা হলেও আমাদের প্রতিষ্ঠানে তা হয়নি। এটা দু:খজনক। আমি নিজে ব্যথিত ও হতাশ। বিষয়টি নিয়ে অধ্যক্ষের সাথে কথা বলবো। প্রয়োজনে তাঁকে নোটিশ করে এর কারণ জানতে চাইবো আমরা।
এ ব্যাপারে অভিযুক্ত সুলতানপুর হানিফ ভূঁইয়া স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মোফাজ্জল হোসাইন জানান, আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ সত্য নয়। প্রতিষ্ঠানের সভাপতি সাহেবের সাথে সার্বক্ষনিক যোগাযোগ করা হয়েছে। ব্যানারের দায়িত্ব স্কুলের সহকারী প্রধান শিক্ষক মোস্তফা সাহেবকে দেওয়া হলেও তিনি ব্যানার করেননি। ফলে উপস্থিত প্রোগ্রামটি আমাদের করতে হয়েছে।
তবে স্কুলের সহকারী প্রধান শিক্ষক এমএস আলম মোস্তফা জানান, বই উৎসবের বিষয়ে অধ্যক্ষ সাহেব আমাদের সাথে কোন পরামর্শ বা সহযোগীতা চাননি। আমাকে ব্যানার করার কোন দায়িত্ব দেওয়া হয়নি। তিনি মিথ্যা বলছেন। তাছাড়া উনার মানসিকতা বুঝা বড় মুশকিল।

সামাজিক যোগাযোগ মধ্যমে শেয়ার করুন...

এ বিভাগের আরো খবর....

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *